বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

জীবনযাপন

ব্রেকআপের পরে যেসব শারীরিক সমস্যা হতে পারে

ব্রেকআপের পরে যেসব শারীরিক সমস্যা হতে পারে

জীবনযাপন
সম্পর্ক ভেঙে যাওয়া জীবনের অন্যতম কষ্টদায়ক ঘটনা। যে ভালোবাসা, সঙ্গ পেতে আমরা অভ্যস্ত ছিলাম সেই অবলম্বন হঠাৎ জীবন থেকে সরে যাওয়ায় গভীর শূন্যতা তৈরি হয়। মন ভেঙে যাওয়ায় তৈরি হয় কিছু শারীরিক সমস্যারও। জেনে নিন এমনই কিছু সমস্যা যেগুলোতে প্রায় সবাই ভোগেন। উৎকণ্ঠা ও ঘুমের সমস্যা: ব্রেক আপ জীবনে হঠাৎ শূন্যতা তৈরি করে। কষ্ট, অবসাদের কারণে উত্কণ্ঠায় ভোগা, ঘুম উড়ে যাওয়ার সমস্যায় ভোগেন প্রায় সকলেই। বুকে ব্যথা:অতিরিক্ত স্ট্রেসের কারণে বুকে ব্যথার সমস্যায় প্রায় সকলেই ভোগেন ব্রেক আপের পর। কিছু ক্ষেত্রে হার্ট অ্যাটাকও হতে পারে।& ত্বকের সমস্যা: দীর্ঘ অবসাদের কারণে অনেকেই শুষ্ক ত্বক, অ্যাকনে, চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যায় ভোগেন। পেশীর যন্ত্রণা: অবসাদে ভুগলে আমাদের আঘাত লাগার প্রবণতাও বেড়ে যায়। স্ট্রেসের কারণে শরীরের পেশীতে ব্যথা হওয়া খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। খিদে কমে যাওয়া ও মোটা হওয়া ব্রেক আপের ঠিক প
প্লাস্টিকের পাত্রে খাবার সংরক্ষণে সতর্কতা

প্লাস্টিকের পাত্রে খাবার সংরক্ষণে সতর্কতা

জীবনযাপন
আমাদের দৈনন্দিন কাজে প্লাস্টিকের ব্যবহার চোখে পড়ার মতো। কিন্তু চিকিৎসকরা বেশিরভাগ সময়ই প্লাস্টিকের বক্সে খাবার রাখতে নিষেধ করেন। কারণ এই পলিথিন থেকে এক ধরনের রাসায়নিক বের হয়। যা আমাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর। তবুও গৃহস্থলীর নানা কাজে নিত্য প্রয়োজনীয় এই জিনিসটি ব্যবহার করা হয় বহুল পরিমাণে। তাই প্লাস্টিকের বক্স ব্যবহার করলেও মেনে চলুন এই বিধি নিষেধগুলি। প্লাস্টিকের বোতল হোক বা কন্টেইনার, কেনার আগে ভালো করে দেখে নিন সেটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য সুরক্ষিত কিনা। প্লাস্টিকের কন্টেইনারের গায়ে বিভিন্ন নম্বর খোদাই করা থাকে। ২, ৪ এবং ৫ নম্বর থাকলে বুঝবেন তা সুরক্ষিত। অন্যদিকে ৩ বা ৭ নম্বর এড়িয়ে চলাই ভালো। নম্বর দেখা ছাড়াও অবশ্যই আরও দুটি জিনিস মাথায় রাখবেন। প্লাস্টিক কন্টেইনারে কখনোই খাবার গরম করবেন না। এমনকি তা মাইক্রোওয়েভ সেফ হলেও নয়। পলিথিনের পাত্রে গরম খাবার রাখাও ঠিক নয়। প্লাস
রসুনের জুড়ি মেলা ভার

রসুনের জুড়ি মেলা ভার

Uncategorized, জীবনযাপন
সাধারণত তরি-তরকারিতে একটুখানি রসুন না দিলে যেন রান্নাই হয় না। স্বাদ বাড়ানোর জন্য এই রসুনের জুড়ি মেলা ভার। কিন্তু শুধুই কি স্বাদের জন্য খাবেন? অন্তত ১১টি অবিশ্বাস্য ভেষজ গুণের কথা জানলে নিয়মিতই আপনি রসুন খেতে চাইবেন। ডায়ালাইল সালফাইডের মতো চমৎকার ওষুধি উপাদানের এই খাবারে কী সেই ১১ গুণ? ১. উচ্চরক্তচাপ কমায় হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের অন্যতম কারণ উচ্চরক্তচাপ। প্রচলিত ওষুধের মতোই রসুন রক্তচাপের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। বলা হয়ে থাকে, ৬০০ থেকে ১৫০০ মিলিগ্রাম রসুন ২৪ সপ্তাহেই উচ্চ রক্তচাপ কমিয়ে ফেলতে পারে। তাই সুস্থ থাকতে প্রতিদিন অন্তত চার কোয়া রসুন খান। ২. চর্বি ঝরিয়ে দেয় যদি আপনার দেহে উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরল বা চর্বি জমে থাকে, তাহলে রসুনের শরণাপন্ন হোন। এটি আপনার শরীর থেকে ক্ষতিকারক কোলেস্টেরল বের করে ফেলে। ৩. মস্তিষ্কের সুস্থ বিকাশ ঘটায় রসুনের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরকে
শরীর সুস্থ এবং উষ্ণ থাকে যে খাবার

শরীর সুস্থ এবং উষ্ণ থাকে যে খাবার

Uncategorized, জীবনযাপন
শীতে তাপমাত্রার পারদ নামার সঙ্গে সঙ্গে শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলো প্রয়োজনীয় তাপ গ্রহণ থেকে বঞ্চিত হয়। এতে সাময়িক সময়ের জন্য শরীরে প্রয়োজনীয় উপাদানের ঘাটতি হয়। তবে এমন কিছু খবার আছে যা গ্রহণ করলে এ সময়েও শরীর সুস্থ এবং উষ্ণ থাকে তিলের খাজা: গুড় ও তিলে দিয়ে তৈরি খাজা মিষ্টি স্বাদের। এর দু’টো উপাদানই শরীরে তাপমাত্রা তৈরি করতে পারে। তিল অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর, আর গুড় আয়রনের অভাব পূরণ করে। লাড্ডু: লাড্ডু সাধারণত আটা, চিনি, ঘি, বাদাম, এলাচি দিয়ে তৈরি হয়ে থাকে। শীতকালে এটি নিঃসন্দেহে খাওয়া যেতে পারে। শরীরে উষ্ণতা বৃদ্ধিতে এতে সব উপাদান বিদ্যমান। কমলা, গাজর, পেয়ারা: দিনে অন্তত একটি করে কমলা, গাজর ও পেয়ারা নিন। এগুলোর ভিটামিন ‘সি’ এবং ভিটামিন ‘এ’ আপনার শারীরিক দুর্বলতা কাটিয়ে তুলবে, দৃষ্টিশক্তি বাড়াবে, সেই সঙ্গে ত্বকের জন্যও উপকারী। কাজুবাদাম: ভিটামিন ‘ই’ সমৃদ্ধ। ঠাণ্ডার সময় এটি আপনার