সোমবার, ২০ মে ২০১৯সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

সানা উল্লাহ সানুর সম্পাদনায় ‘লক্ষ্মীপুর ডায়েরি’

সানা উল্লাহ সানুর সম্পাদনায় ‘লক্ষ্মীপুর ডায়েরি’

রূপালি মাছ ইলিশ, সুপারি আর সয়াবিন খ্যাত জেলা লক্ষ্মীপুরের ইতিহাস-ঐতিহ্য নিয়ে আত্মপ্রকাশ ঘটললক্ষ্মীপুর ডায়েরিনামক একটি গ্রন্থের দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের জেলা লক্ষ্মীপুর সম্পর্কে জানতে যেকোনো গবেষক কিংবা ভ্রমণপিপাসু মানুষের খোরাক মেটাতে সহায়তা করবে বইটি  আজ শনিবার গ্রন্থটির মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত বিশিষ্টজনেরা অভিমত দিয়েছেন, গ্রন্থটি লক্ষ্মীপুরের ইতিহাসকে সমৃদ্ধ করবে। বাংলাদেশের ইতিহাসে অনবদ্য দলিল হিসেবে যুক্ত হলো 'লক্ষ্মীপুর ডায়েরি' গ্রন্থটি আগামী প্রজন্মকে জেলার শেকড় সন্ধানে বিশেষভাবে সহায়তা করবে বলে জানিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা রাজধানীর কাঁটাবনে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জার্নালিজম অ্যান্ড ইলেকট্রনিক মিডিয়া (বিজেম) মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবেলক্ষ্মীপুর ডায়েরি মোড়ক উম্মোচন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক . . এস. এম মাকসুদ কামাল লক্ষ্মীপুর জেলা সমিতির সাবেক সভাপতি ফরিদ আহমেদ ভূইঁয়ার সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অধ্যাপক মাকসুদ কামাল বলেন, একটি অঞ্চলকে এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ করে লক্ষ্মীপুরের সংস্কৃতি এগিয়ে নেওয়ার জন্য 'লক্ষ্মীপুর ডায়েরি' একটি মহৎ উদ্যোগ। 'লক্ষ্মীপুর ডায়েরি' নামক বইকে লক্ষ্মীপুরের তথ্যের জন্য মূল বেইজ লাইন ধরে ভবিষ্যতে আরো এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতে হবেলক্ষ্মীপুর ডায়েরিনামক গ্রন্থে লক্ষ্মীপুর জেলাকে আরো গভীর থেকে তুলে আনার চেষ্টা করা হয়েছে। সানা উল্লাহ সানুর সম্পাদনায় ৬২৪ পৃষ্ঠার ২৬টি অধ্যায়ের প্রতিটি শব্দ জুড়ে রয়েছে লক্ষ্মীপুর জেলার নানা ইতিহাস আর মৌলিক তথ্য। আছে বিষয়বস্তু সম্পর্কিত ছবি এবং মানচিত্র। ইতিহাসের বর্ণনা এবং উপস্থাপিত তথ্যগুলো অনেকের কাছে এতদিন অজানাই ছিল। গ্রন্থে উঠে এসেছে লক্ষ্মীপুর ভূখণ্ডের উৎপত্তি, জনবসতি, ঐতিহাসিক শাসন, সংগ্রাম ইত্যাদি বিষয়ের ওপর বিষয় ভিত্তিক তথ্যাদি। লক্ষ্মীপুর জেলার ঐতিহাসিক তথ্য-উপাত্ত নিয়ে এর আগে এতটা বড় পরিসরে কোনো গ্রন্থ প্রকাশিত হয়নি অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, গুসি আন্তর্জাতিক পুরস্কার বিজয়ী বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ডরপের প্রতিষ্ঠাতা এইচ এম নোমান, এনএসআইয়ের সাবেক অতিরিক্ত মহা পরিচালক শামছুল আমিন, লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মাইন উদ্দিন পাঠান, সহকারী পুলিশ সুপার মিরাজুর রহমান পাটোয়ারী, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জার্নালিজম এন্ড ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া (বিজেম) নির্বাহী পরিচালক মির্জা তারেকুল কাদের, এনটিভির বার্তা সম্পাদক আবদুস সহিদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টোর . শামছুল কবির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক সাম্মী আক্তার সুরভী, সুপ্রীম কোর্টে আইনজীবী . বদরুল হাসান কঁচি ।