বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

লক্ষ্মীপুরে ৩ হত্যা ও এক গুমের ঘটনায় বিএনপির স্মরণ সভা

লক্ষ্মীপুরে ৩ হত্যা ও এক গুমের ঘটনায় বিএনপির স্মরণ সভা

লক্ষ্মীপুর : অন্দোলন চলাকালে ২০১৩ সালের ১২ ডিসেম্বর লক্ষ্মীপুরে তিন নেতাকর্মীকে হত্যা, কয়েকজনকে গুম ও গুলি করে পঙ্গু করার চার বছর উপলক্ষে কর্মসূচী পালন করছে জেলা বিএনপি। 
মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) বিকেলে জেলা শহরের সোনামিয়া ঈদগাঁহ জামে মসজিদে স্মরণ সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 
দোয়া অনুষ্ঠান চলাকালে মসজিদের মাঠে বিকট শব্দে একটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে। এসময় সেখানে উপস্থিত নেতাকর্মীরা ছুটোছুটি করে। কেউ আহত না হলেও চরম আতংক ছড়িয়ে পড়ে। তবে কারা, কি কারণে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে তা জানা যায়নি।
দোয়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোহাম্মদ শামছুল আলম, জেলা বিএনিপির সভাপতি আবুল খায়ের ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সদর উপজেলা (পূর্ব) বিএনপির সভাপতি মাইন উদ্দিন চৌধুরী রিয়াজ, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বাচ্চু, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হারুনুর রশিদ, ছাত্রদল নেতা আবদুল্লাহ আল মামুন ও মোস্তাফিজুর রহমান সোহেলসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেয়।
এদিকে, জেলা বিএনিপির সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন সাবুর উত্তর তেমুহনীর বাস ভবনের সামনে পৃথক দোয়া ও স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়েছে। 
এসময় উপস্থিত ছিলেন- জেলা বিএনপির সহ সভাপতি সাঈদুর রহমান ছুট্টু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ বেপারী, সাংগঠনিক সম্পাদক হাছিবুর রহমান, জেলা যুবদলের সভাপতি রেজাউল করিম লিটন ও পৌর ছাত্রদলের সভাপতি মোচ্ছাদ্দেক হোসেন বাবর প্রমুখ।
প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালের ১২ ডিসেম্বর বিএনপি-জামায়াতের অবরোধ চলাকালে বাসায় ঢুকে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন সাবুর পায়ে গুলি করে আটক করে র‌্যাব। এর জেরে নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ মিছিল করে। এসময় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের ওপর গুলি করে র‌্যাব সদস্যরা। এসময় জেলা যুবদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ জুয়েল গুলিবিদ্ধ হন। পরে গুলিবিদ্ধ মূর্মূর্ষ অবস্থায় তাঁকে র‌্যাব সদস্যরা তাদের গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। এরপর থেকে আজও তার সন্ধ্যান মেলেনি। একইদিন গুলিবিদ্ধ হয়ে স্থানীয় বিএনপি নেতা মাহবুবুর রহমান (৪৫), শিবিরকর্মী শিহাব উদ্দিন (১৫) ও যুবদলকর্মী সুমন (৩৫) নিহত এবং কয়েকজন নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হন। একপর্যায়ে জেলা পুলিশ লাইনস এলাকায় সড়কে র‌্যাব সদস্যদের অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। তখন ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারে গোলাবারুদ নিয়ে অতিরিক্ত র‌্যাব এসে অবরুদ্ধদের উদ্ধার করে নিয়ে যায়।