বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

লক্ষ্মীপুরে এ্যানীর বাড়িতে হামলা-ভাঙচুর, সাংবাদিক আহত

লক্ষ্মীপুরে এ্যানীর বাড়িতে হামলা-ভাঙচুর, সাংবাদিক আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক : কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রচার সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরীর এ্যানীর বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর করেছে আওয়ামী লীগ। এ সময় ভিডিও ফুটেজ ধারণ করার সময় দুইজন সাংবাদিককে পিটিয়ে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়া ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা। আহত এক সাংবাদিককে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বেলা তিনটার দিকে আওয়ামী লীগ মিছিল নিয়ে এ্যানীর বাড়িতে এ হামলা চালায়। এসময় এ্যানীর বসতবাড়ি বশির ভিলার দুটি দরজা ভাঙচুর করে। এছাড়াও বসতবাড়ির সামনে একটি টিনসেট ঘর ভাঙচুর ও আশপাশে ঝুলানো বেশ কিছু ব্যানার পেস্টুন ছিড়ে পেলে তারা। ওই মিছিলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা ছিলেন। হামলার সময় বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীর এ্যানীর বাড়ির ভেতরে অবস্থান করছিলেন। এসময় তাদের ধাওয়া করা হয়। প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিক ও স্থানীয়রা জানান, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার পর লক্ষ্মীপুরে আনন্দ মিছিল বের করে আওয়ামী লীগ। মিছিলটি লক্ষ্মীপুর শহরের উত্তর তেমুহনি থেকে শুরু করে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলটি এক পর্যায়ে সাবেক গো হাটা রোড গেলে উত্তেজিত কিছু নেতাকর্মী এ্যানীর বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় ভিডিও ফুটেজ ধারণ করার সময় মাছরাঙা টেলিভিশনের লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি শাকের মোহাম্মদ রাসেলকে পিটিয়ে মাথা পাটিয়ে দেয়া হয়। একই সময় অনলাইন জেটিভির জেলা প্রতিনিধি মো. রুবেলকে লাঞ্ছিত করে তারও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়। তাৎক্ষণিক সহকর্মীদের রক্ষায় এগিয়ে গেলে সাংবাদিক আনিস কবিরকেও লাঞ্ছিত করে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা। এসময় পুলিশ ও জেলা যুবলীগের সভাপতি একেএম সালাহ উদ্দিন টিপু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নজরুল ইসলাম ভুলু ও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুন্নবী সোহেল উত্তেজিত কর্মীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। এরআগে রায়ের প্রতিবাদে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে গোডাউন রোড পৌছলে ছাত্রলীগ-যুবলীগ তাদের ওপর হামলা চালায়। এসময় জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হারুনুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম মামুন, কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুন ও যুবদল নেতা মুকুলসহ বেশ কয়েক নেতাকর্মী আংশিক আহত হয়েছেন। তারা স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী বলেন, রায়ের প্রতিবাদে লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নেতাকর্মীরা মিছিল বের করলে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ তাদের ওপর হামলা করে। পরে আমার বাড়িতেও হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করা হয়। এসময় সাংবাদিকরা ভিডিও করতে গেলে তাদের ওপর হামলা করে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়। তিনি এসব ঘটনার নিন্দা জানায়। সকাল থেকে মামলার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুরে থমথমে অবস্থা বিরাজ ছিলো। সর্বত্র ছিলো চাপা আতঙ্ক। বেলা ৪ টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বিএনপির কোনো নেতাকর্মীদের রাস্তা দেখা যায়নি। এসময় লক্ষ্মীপুর শহরে পুলিশ ও বিজিবি টহল জোরদার ছিলো। গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ছিলো অতিরিক্ত পুলিশ। তবে এ্যানীর বাড়িতে হামলার বিষয়ে পুলিশের সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।
  • Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Print
Copy link
Powered by Social Snap