মঙ্গলবার, ৩ আগস্ট ২০২১সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

মেঘনায় শীতেও ইলিশ, রাতে জমজমাট হাট

মেঘনায় শীতেও ইলিশ, রাতে জমজমাট হাট

লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুরের মেঘনা ইলিশের প্রজনন ক্ষেত্র। বছরের সব মৌসুমে কম-বেশি ইলিশের দেখা মেলে এই উপকূলে। শীতেও মেঘনা নদীতে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে। ইলিশ পাওয়ায় দিন-রাত শীত উপেক্ষা করে মাছ ধরতে ব্যস্ত থাকেন জেলেরা। আর অসময়ে মধ্যরাত পর্যন্ত হাটে-ঘাটে বিক্রি হয় সেগুলো। শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর)  মধ্যরাতে কমলনগর উপজেলার হাজিরহাটে জমজমাট ইলিশের হাট মিলতে দেখা গেছে। রাত ৯টা থেকে নির্ধারিত বাজার ছেড়ে স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ীরা প্রধান সড়কের পাশে মাছের অস্থায়ী হাট বসান। বোয়াল, কোরাল ও পোয়া মাছও দেখা গেছে, তবে সংখ্যায় কম, ইলিশের দখলেই ছিলো হাট। রাত ৯টার পর থেকে মাছ বাজারে ক্রেতা উপস্থিতি কমে যায়। যে কারণে ক্রেতা আকর্ষণ করতে বাজারের রাস্তার পাশে বিক্রি করেন তারা। প্রতি রাতে একইভাবে মাছ বিক্রি করতে দেখা যায়। ইলিশের দামও ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে। মাঝারি সাইজের (৫০০ থেকে ৬০০ গ্রাম) দু’টি ইলিশ ৪০০ টাকায় বিক্রি করা হয়। দাম নাগালের মধ্যে থাকায় ক্রেতাদের আগ্রহও দেখা যায় ইলিশের দিকে। স্থানীয়রা জানান, হাজিরহাট বাজারে সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত মাছ বিক্রি করা হয়। নদী থেকে কাছে  হওয়ায় ঘাট হয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে বাজারে আসে ইলিশ। তাজা মাছ কিনতে ক্রেতারাও ছুটে আসেন। ভরা মৌসুমে এ হাটে মাইকিং করেও ইলিশ বিক্রি করা হয়েছে।   কমলনগর উপজেলার লরেন্স, করইতলা, তোরাবগঞ্জ, করুনানগর, রামগতি উপজেলার মধ্য রামগতিরহাট ও আলেকজান্ডার, রায়পুর এবং লক্ষ্মীপুর শহরেও প্রচুর ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে। তবে শহরের চেয়ে মাছ ঘাটও উপকূলীয় বাজারগুলোতে দাম কম। ব্যবসায়ীরা জানান, সব মৌসুমেই ইলিশের কদর। যে কারণে বিক্রি বেশি হয়। মধ্যরাতেও বাজারে ইলিশের ক্রেতা থাকে। লক্ষ্মীপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এইচ এম মহিব উল্লাহ বলেন, মেঘনা নদীর চাঁদপুরের ষাটনল থেকে লক্ষ্মীপুরের রামগতি পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটা ইলিশের প্রজনন ক্ষেত্র। সাগর থেকে এ এলাকায় ইলিশ ডিম ছাড়তে আসে। যে কারণে সারা বছরই কম-বেশি ইলিশ ধরা পড়ে মেঘনা নদীতে।
  • Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Print
Copy link
Powered by Social Snap