শুক্রবার, ৭ অক্টোবর ২০২২সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

মজুচৌধুরীর ঘাটে সেলিমের বালুমহাল সিলগালা

মজুচৌধুরীর ঘাটে সেলিমের বালুমহাল সিলগালা

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুরে ফেরীঘাটে চলাচলের রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করায় একটি বালুমহাল সিলাগালা করা হয়েছে। এসময় দুইটি ট্রাক জব্দ ও দুই চালককে আটক করা হয়। সোমবার (৪ জুন) বিকেলে লক্ষ্মীপুর-ভোলা নৌ-রুটের মজুচৌধুরীর হাটের ফেরীঘাটে এ অভিযান চালায় প্রশাসন। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহাজান আলী ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় চররমনী মোহন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু ইউছুফ ছৈয়াল উপস্থিত ছিলেন। অভিযানে সেলিমের ওই বালুমহাল সিলগালা, ট্রাক জব্দ ও চালকদের আটক করা হয়। আটকরা হলেন ফেনীর ট্রাক চালক হানিফ ও মো. মমিন। উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, সদর উপজেলার মজুচৌধুরীরহাট ফেরীঘাটের প্রবেশের রাস্তায় স্থানীয় প্রভাবশালী সেলিমের বালুর ব্যবসা করে আসছে। প্রতিদিন রাস্তার ওপর রেখে ট্রাকে বালু উঠানো হয়। এতে রাস্তা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়ে এ রুটে চলাচলকারী শত শত যানবাহন আটকা পড়ে। সময়মত ফেরীতে উঠতে না পারায় বাসযাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়। পণ্যবাহী ট্রাকের কাঁচামাল পঁচে নষ্ট হয়। এছাড়া বালুবহনকারী ট্রাকের চাপে একটু বৃষ্টিতেই রাস্তাটি অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। বিষয়টি প্রশাসনকে অবগত করা হয়। সম্প্রতি জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্রপাল ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহাজান আলী ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের সর্তক করেন। একই সময় লাল পতাকা দিয়ে রাস্তার সীমানা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। ইউএনও শাহাজান আলী বলেন, সর্তক করার পরেও অব্যাহতভাবে ব্যবসা চালিয়ে ফেরীঘাটে চলাচলকারী যাত্রী ও যানবাহনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রাখায় বালুমহাল সিলগালা করা হয়েছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে দু’টি ট্রাক ও দু’জন চালককে আটক করা হয়। প্রসঙ্গত, মজুচৌধুরীরহাট ফেরীঘাট হয়ে লক্ষ্মীপুর-ভোলা নৌ রুটে ২১ জেলার মানুষ যাতায়াত করে। দীর্ঘদিন থেকে রাস্তার ওপর বালু ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ায় চলাচলকারীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

  • Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Print
Copy link
Powered by Social Snap