বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

বেগম রোকেয়া ছিলেন উপমহাদেশের নারী জাগরণের অগ্রদূত

বেগম রোকেয়া ছিলেন উপমহাদেশের নারী জাগরণের অগ্রদূত

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেন ছিলেন উপমহাদেশের নারী জাগরণের অগ্রদূত। তিনি আমাদের (নারীদের) জন্য নতুন দিগন্তের উন্মোচন করে দিয়েছিলেন। তাকে অনুসরণ করেই আজ আমরা এগিয়ে যেতে পেরেছি। শনিবার (০৯ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বেগম রোকেয়া পদক-২০১৭ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 
শেখ হাসিনা বলেন, বেগম রোকেয়ার অনুপ্রেরণা নিয়েই তিনি সরকার পরিচালনা করে যাচ্ছেন। একই সঙ্গে বাঙালি নারীর জাগরণ তরান্বিত হচ্ছে। বেগম রোকেয়া বাঙালির নারী জাগরণের অগ্রদূত। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নারী উন্নয়নে নীতিমালা প্রণয়ন করেছে। আমরা ১৯৯৬ সালে প্রথম ক্ষমতায় এসে ৩ মাস মাতৃত্বকালীন ছুটি ঘোষণা করেছিলাম। পরে আবার ২০০৮ সালে ক্ষমতায় এসে সেটা ৬ মাসে উন্নীত করি।  প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা নারী-পুরুষ মিলে কাজ করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। নারীদেরকে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর সুযোগ দিতে হবে। তিনি বলেন, বাবার প্রতিটি কাজে পেছন থেকে আমার মা সহযোগিতা করতেন।   ২০২১ সালে বাংলাদেশ হবে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে হবে উন্নত সমৃদ্ধশালী দেশ। এ লক্ষে আওয়ামী লীগ সরকার কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।   বেগম রোকেয়া পদক পেয়েছেন দেশের স্বনাম ধন্য পাঁচ নারী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তাদের হাতে এ পদক তুলে দেন।  এ বছর পদক পেলেন— মুক্তিযোদ্ধা মাজেদা শওকত আলী, শিক্ষক শোভারাণী ত্রিপুরা, গ্রামীণ বিকাশ সহায়তা সংস্থার মাহমুদা খাতুন রত্না, সুরাইয়া বেগম এবং সাংবাদিক (মরণোত্তর) মাহফুজা খাতুন (বেবী মওদুদ)। বক্তব্যের শুরুতেই রোকেয়া পদকপ্রাপ্ত ৫ নারীকে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী।