শুক্রবার, ৭ অক্টোবর ২০২২সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

জেলা পরিষদের সদস্য মাহবুবের অসদাচরণ : কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি

জেলা পরিষদের সদস্য মাহবুবের অসদাচরণ : কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের সদস্য ও যুবলীগ নেতা মাহবুবুল হক মাহবুব পরিষদের উচ্চমান সহকারী রুহুল কুদ্দুসসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে লাঞ্ছিত ও অসদাচরণ করায় কর্মবিরতি পালন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৫ জুন) দুপুর ১২ টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।এরআগেও প্রতিকার চেয়ে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহানের কাছে লিখিত আবেদন করেন ভুক্তভোগীরা। মাহবুব লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা (পশ্চিম) যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক।অভিযোগপত্র সূত্রে জানা যায়, সোমবার (৪ জুন) জেলা পরিষদের সদস্য মাহবুবের মোবাইল ফোন রিসিভ না করায় উচ্চমান সহকারী রুহুল কুদ্দুসকে গালমন্দ ও লাঞ্ছিত করেন। এরআগেও তিনি কার্যালয়ের কর্মচারী মাহাতাব উদ্দিন হৃদয়, নৈশ প্রহরী হাবিব উল্লাহ, সারভেয়ার মিজানুর রহমান ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবদুল্লাহ আল মামুনসহ প্রায় সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে অসদাচরণ ও তাদেরকে লাঞ্ছিত করেছেন। এছাড়াও প্রভাব খাটিয়ে তিনি নিয়ম বহির্ভুতভাবে জেলা পরিষদের সচিবের কক্ষ ব্যবহার করে আসছেন। এসব ঘটনার প্রতিবাদ ও প্রতিকার চেয়ে পরিষদের সকল কক্ষে তালা লাগিয়ে কর্মবিরতি পালন করা হয়।কর্মবিরতি চলাকালে ভুক্তভোগীরা বলেন, জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে যুবলীগ নেতা মাহবুব প্রভাব বিস্তার করে কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে অসদাচরণ ও লাঞ্ছিত করে আসছেন। তার দাপটে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যেন অসহায়। এমন পরিস্থিতিতে অফিস কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এ বিষয়ে তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানান।অভিযুক্ত মাহবুবুল হক মাহবুব সাংবাদিকদের বলেন, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে অসদাচরণ ও লাঞ্ছিতের ঘটনা সত্য নয়। বিষয়টি অপ-প্রচার।লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবু দাউদ গোলাম মোস্তফা বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে শান্ত থাকতে বলা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

  • Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Print
Copy link
Powered by Social Snap