মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০সত্য ও সুন্দর আগামীর স্বপ্নে...

আর হত্যার রাজনীতি হবে না : মন্ত্রী শাহজাহান কামাল

আর হত্যার রাজনীতি হবে না : মন্ত্রী শাহজাহান কামাল

নিজস্ব প্রতিবেদক :  বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল এমপি বলেছেন, খালেদা জিয়া নির্বাচনে না গিয়ে এক বছর পর হঠাৎ আন্দোলন শুরু করেন। আন্দোলনের নামে পেট্রোল বোমা মেরে ৩ শ’ থেকে ৪ শ’ লোক হত্যা করা হয়েছে। আর হত্যার রাজনীতি হবে না। আওয়ামী লীগ হত্যার রাজনীতি বিশ্বাস করে না। দেশের উন্নয়নের জন্য শেখ হাসিনা কাজ করে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশ এগিয়ে যায়। বুধবার (২৪ জানুয়ারি) বিকেলে লক্ষ্মীপুর আদর্শ সামাদ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজিত নবনিযুক্ত মন্ত্রীর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, আমি মন্ত্রী হয়েছি এটা আমার কোন ক্রেডিট নয়। প্রধানমন্ত্রী লক্ষ্মীপুরবাসীকে ভালোবাসেন বলেই মন্ত্রী উপহার দিয়েছেন। যতদিন বেঁচে থাকবো লক্ষ্মীপুরের উন্নয়নে কাজ করে যাবো। তাকে মন্ত্রী করায় এসময় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। মন্ত্রী বলেন, ৯ মাসে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। আমার মন্ত্রীত্বের মেয়াদ আছে ৯ মাস। এই অল্প সময়ে সবার সহযোগীতা পেলে জনগণের কল্যাণে কাজ করতে পারবো। জেলার প্রত্যেক উপজেলায় যাবো। সবার পরামর্শ নিয়ে লক্ষ্মীপুরকে এগিয়ে নিতে কাজ করবো। তাই সবার সহযোগীতা চাই। আমার বিশ্বাস সবাই পাশে থাকবেন। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হারুনুর রশিদ, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলি, লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য লায়ন এমএ আউয়াল, লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর ও সদরের একাংশ) আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নোমান, লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি ও কমলনগর) আসনের সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল মামুন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এম আলাউদ্দিন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র আবু তাহের, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাবেক উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক এমএ মমিন পাটওয়ারী, জেলা যুবলীগের সভাপতি একেএম সালাহ উদ্দিন টিপু। এসময় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, মন্ত্রী শাহজাহান কামালের সহধর্মিনী ফেরদৌসী কামাল, আওয়ামী লীগ নেতা ও সজিব গ্রুপের চেয়ারম্যান এমএ হাসেম, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহিম, জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এমআর মাসুদ, জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রাসেল মাহমুদ মান্না, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য শামছুল ইসলাম পাটওয়ারী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক নজরুল ইসলাম ভুলু, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল নোমান, জেলা পরিষদের সদস্য ফরিদা ইয়াসমিন লিকা, মাহবুবুল হক মাহবুব, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুন্নবী সোহেল, সাধারণ সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাস, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন বেলাল, সাধারণ সম্পাদক মাহবুব ইমতিয়াজ ও জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক হিজবুল বাহার রানা প্রমুখ।
  • Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Print
Copy link
Powered by Social Snap